যে ভি’টামিনগুলো সব না’রীরই প্রয়োজন

বর্তমানে পুরুষের সাথে সাথে নারীরাও সবক্ষেত্রে এগিয়ে। আধুনিক সব নারীরাই এখন ঘরেও কাজের পাশাপাশি বাইরের কাজেও ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে পুরুষের তুলনায় নিজের স্বাস্থ্যের দিকে একটু কমই খেয়াল রাখেন নারীরা।

আবার অনেক স্বাস্থ্যসচেতন নারীরা স্বাস্থ্যকর ডায়েট মেনে চলতে পছন্দ করেন। তবে কিছু ভিটামিন অব্যশই ডায়েট চার্টে থাকা উচিত। যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে নানা শারীরিক সমস্যা সমাধান করে থাকে। তাহলে আসুন তেমন কিছু ভিটামিন সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক, যা সব নারীরই প্রয়োজন।

ভিটামিন এ
সব বয়সী নারীদের জন্য ভিটামিন এ প্রয়োজনীয়। এটি হাড়, দাঁত মজবুত করে। এর সাথে টিস্যু , ত্বক এবং পেশী মজবুত করে থাকে।নিয়মিত গ্রহণে ভিটামিন এ দীর্ঘমেয়াদী অসুস্থতার ঝুঁকি কমায়, দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটায়, বয়স বৃদ্ধির প্রক্রিয়াকে ধীর করে। টমেটো, তরমুজ, পেয়ারা, ব্রকলি, পেঁপে, দুধ, কলিজা ইত্যাদি খাবারে প্রচুর ভিটামিন এ রয়েছে।

ভিটামিন ডি
আমাদের শরীরের হাড়ের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে ভিটামিন ডি’র গুরুত্ব অপরিসীম। ভিটামিন ডি’র কাজ হচ্ছে দেহের অন্ত্র থেকে ক্যালসিয়ামকে শোষণ করা।

ক্যালসিয়াম, ফসফরাস এবং মিনারেল সমৃদ্ধ ভিটামিন ডি সামুদ্রিক মাছ, ফ্যাটি ফিশ, ডিম, দুধ ইত্যাদি খাবারে রয়েছে। এটি পিএমএসের লক্ষণ কমিয়ে দেয়। নিয়মিত সূর্যের আলোর সংস্পর্শে থাকা হাড়ের সমস্যা অস্টিওপরোসিস রোধ করে।

ভিটামিন বি
এটি ভিটামিন বি কমপ্লেক্স নামেও পরিচিত। এই ভিটামিন পানিতে দ্রবণীয় এবং ভঙ্গুর। ভিটামিন বি মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে স্মৃতিশক্তি বাড়িয়ে দেয় এমনটি বলেন Mary Ellen Camire, University of Maine এর পুষ্টিবিদ।

বি৬ লোহিত রক্ত কণিকা তৈরি করে। ভিটামিন বি৯ ফলিক এসিড নামে পরিচিত যা হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ডিপ্রেশন, ক্যান্সার ও মেমোরি লস প্রতিরোধ করে।

ভিটামিন বি৬
এটি হোমোসিসটিনের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। যা ক্ষতিকর এক ধরনের অ্যামাইনো এসিড। এবং এটি হৃদ রোগের অন্যতম কারণ। এছাড়া স্মৃতি হারানোর সমস্যা কমতে সাহায্য করে।

মাছ, মাংস, বিনস, সবজি, ওটমিল ফল ইত্যাদি ভিটামিন বি সমৃদ্ধ খাবার। প্রতিদিনকার খাদ্যতালিকায় ভিটামিন বি১২, ভিটামিন বি৯ ভিটামিন বি৬, ভিটামিন বি৭ ইত্যাদি খাবার রাখা প্রয়োজন।

ভিটামিন ই
বয়স বৃদ্ধি রোধ, হার্ট সুস্থ রাখা, ক্যান্সার প্রতিরোধ করে ত্বক এবং চুল সুস্থ রাখতে ভিটামিন ই অপরিহার্য। এছাড়া এটি রাসায়নিক ক্রিয়া বা অক্সিডেশনকে প্রতিহত করে, এ অক্সিডেশন শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

শরীরের স্নায়ু ও মাংসপেশির কাজ সঠিক করার জন্যও ভিটামিন-ই গুরুত্বপূর্ণ। বাদাম, কর্ লিভার অয়েল, পালং শাক, সানফ্লাওয়ার সিডস ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ই রয়েছে।

ভিটামিন সি
ভিটামিন সি এমন একটি পুষ্টি উপাদান যা মানব শরীরের জন্য খুবই জরুরি। কারণ রক্ত চলাচল থেকে শুরু করে শিরা ও ধমনীর কর্মক্ষমতা বজায় রাখা, কোষ গঠন এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ইত্যাদি সব কিছুতেই ভিটামিন সি-এর উপস্থিতি অপরিহার্য।

এছাড়াও ত্বক সুন্দর রাখা ও দাঁত ভালো রাখতে সাহায্য করে ভিটামিন সি। কমলা, আঙ্গুর, জাম্বুরা, স্ট্রবেরি, ব্রকলি ইত্যাদি খাবারে ভিটামিন সি রয়েছে।

About alamin

Check Also

লিভার, কিডনি ও হার্ট ভাল রাখতে কিসমিস, যেভাবে খাবেন… –

মিষ্টি খাবার কিংবা পোলাওয়ে কয়েকটি কিসমিস দিলে এর স্বাদ কয়েক গুণ বেড়ে যায়। কিন্তু শুধু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *